• Tuesday, October 24, 2017
logo
add image
আনোয়ারার শীর্ষ ইয়াবা গডফাদার সেলিম গ্রেপ্তার

আনোয়ারার শীর্ষ ইয়াবা গডফাদার সেলিম গ্রেপ্তার

আনোয়ারা প্রতিনিধি,সিটিনিউজ :: প্রশাসনের কড়া নজরদারি ও সরকারের কঠোর অবস্থানের পরও থেমে নেই ইয়াবা বাণিজ্য। গ্রেপ্তার আতঙ্কে আনোয়ারা উপজেলার প্রায় অর্ধশতাধিক ইয়াবা গডফাদার অবস্থান বদল করেছে মাত্র। তারা ঢাকা, ক·বাজার ও চট্টগ্রাম শহরে বসে চালিয়ে যাচ্ছে ইয়াবা ব্যবসা।

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) দিবাগত রাত সাড়ে তিনটায় আনোয়ারা থানা পুলিশের হাতে শীর্ষ ইয়াবা গডফাদার মোহাম্মদ সেলিম (৩৫) নগরীর হালিশহরস্থ ফ্ল্যাট বাসা থেকে গ্রেপ্তার হওয়ার পর বিষয়টি আরো পরিস্কার হলো।

ধৃত সেলিম উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের খোর্দ্দ গহিরা গ্রামের ইসলাম আহমদের পুত্র। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আনোয়ারা থানার ওসি (তদন্ত) মাহবুব মিল্কীর নেতৃত্বে এসআই কামাল উদ্দিন,এএসআই রেজাউল করিমসহ সঙ্গীয় ফোর্স এ অভিযান চালায়।

এর আগে গত ২০ মে আনোয়ারা উপক‚লে ইয়াবা চালান খালাসের সময় তার বড়ভাই আবদুর রহিমকে দুই লাখ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সেলিম ওই মামলার তালিকাভুক্ত আসামী বলে জানান আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ।

এদিকে,সেলিম পুলিশকে জানায়,গ্রেপ্তার আতঙ্কে সে দীর্ঘদিন ধরে নগরের ফ্ল্যাট বাসা নিয়ে থাকতো। তার মতো আনোয়ারার অনেকেই ভাড়া বাসা বা নিজস্ব ফ্ল্যাটে ঢাকা-চট্টগ্রাম শহরে থেকে ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

সেলিম গ্রেপ্তার হলেও এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছে তার সিন্ডিকেটের অন্যতম গডফাদার ইউসুফ ওরফে কালা মনু,সোলেমান মানোর ভাই সেলিম,কালা ইদ্রিচ,ময়না গাজী বাড়ির আবদুর রহিম ও চেয়ারম্যান পুত্র নাছির উদ্দিন।

শীর্ষ ইয়াবা গডফাদার সেলিম গ্রেপ্তারের পর এসব সহযোগীরা গা-ঢাকা দিয়েছে।

সূত্র জানায়,ইদানিং আইন-শৃক্সখলা বাহিনীর সাঁড়াশি অভিযানের ফলে আনোয়ারায় ইয়াবা বাণিজ্যে জড়িতদের অনেকেই এলাকা ছেড়েছে। তারমধ্যে কেউ কেউ আইন-শৃক্সখলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়লেও আত্মগোপনে রয়েছে মূলহোতারা। তারা বিভিন্ন শহরের ফ্ল্যাট বাসায় থেকে কৌশল পাল্টিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে ইয়াবা বাণিজ্য।

আনোয়ারার ৭টি সিন্ডিকেট ভেঙ্গে দিয়ে এক সিন্ডিকেটে সক্রিয় হয়েছে তারা। তাদের সাথে নতুন করে জড়িয়ে পড়ছে জেল ফেরত ইয়াবা ব্যবসায়ীসহ ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা।

আনোয়ারা উপকূলে পুলিশের নজরদারি বাড়ানোর ফলে  কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এলেও থেমে নেই ইয়াবা বাণিজ্য।

Leave a reply