• Saturday, November 18, 2017
logo
add image

টেকনাফে জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের ভোটার করার অভিযোগ

টেকনাফে জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের ভোটার করার অভিযোগ

টেকনাফে জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের ভোটার করার অভিযোগ

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার::কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নে সদ্য সম্পন্ন হওয়া ভোটার তালিকা হালনাগাদে রোহিঙ্গা নাগরিকদের ফরম পূরণ করার অভিযোগ উঠেছে। লাখ টাকার বিনিময়ে চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট ও জন্ম সনদ নিয়ে এধরনের কাজ করা হয়েছে বলে অভিযোগ। ইতোমধ্যে দুই জন রোহিঙ্গা নারী পুরুষ ইতিমধ্যে ভোটার তালিকাভুক্ত হয়ে গেছে । বাহারছড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ শিলখালী ৪নং ওয়ার্ডে ঘটেছে এঘটনা। এব্যাপারে দক্ষিণশীল খালী গ্রামের বাসিন্দা হাজী কালামিয়া নামের এক ব্যক্তি টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন কমিশনার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

সুত্রে জানা গেছে, দেশের অন্যান্য স্থানের মতো কক্সবাজার জেলায়ও ভোটার তালিকা হালনাগাদের কার্যক্রম চলে। এতে জেলার টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়ার ইউনিয়নে সদ্য সম্পন্ন হওয়া ভোটার তালিকা হালনাগাদের ভোটার ফরম পূরণ করা একই পরিবারের সদস্য বলে দাবীদার ৩ রোহিঙ্গা নাগরিককে।

এরা হলেন, বাহারছড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ শিলখালী গ্রামে বসবাসকারী মিয়ানমার নাগরিক মোঃ ইউছুফ, মোঃ ইউনুছ ও রিনা বেগম। তাদের পিতার নাম মোঃ ইসমাঈল ও মাতার নাম লাইলা বেগম তারাও রোহিঙ্গা নাগরিক। বাবা মোঃ ইসমাঈল ও মাতা লাইলা বেগম গত বারের ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় কতিপয় জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় টাকার বিনিময়ে ভোটার তালিকাভুক্ত হয়েছেন। বর্তমানে তাঁরা ২ রোহিঙ্গা এনআইডি কার্ডও হাতে পেয়েছেন। পিতা মোঃ ইসমাঈলের জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) নং-২২১৯০১৫৫৮৮৯৩৭ এবং মাতা লাইলা বেগমের জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) নং-২২১৯০১৫৬২৫২০৫। এসব রোহিঙ্গাদের ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেয়ার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দা হাজী কালা মিয়া ।

বাহারছড়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ শিলখালী গ্রামের বাসিন্দা মৃত হাকিম আলীর ছেলে হাজী কালা মিয়া লিখিত অভিযোগে জানান, এবারের ভোটার তালিকা হালনাগাদে বাহারছড়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ শিলখালী গ্রামে বসবাসকারী মিয়ানমার নাগরিক মোঃ ইউছুফ, মোঃ ইউনুছ ও রিনা বেগম কৌশলে ভোটার তালিকাভুক্ত হওয়ার জন্য ফরম পূরণ করেছে। এবিষয়টি অবগত হওয়ার পর তিনি টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন কমিশনারের বরাবর সম্প্রতি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। দায়েরকৃত লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ৪নং ওয়ার্ডের মেম্বার হাফেজ আহমদ সুপারিশও করেছেন।

মিয়ানমার নাগরিক মোঃ ইউছুফ, মোঃ ইউনুছ ও রিনা বেগম বলেন, বাহারছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মৌলভী আজিজ উদ্দিন তাদের চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট ও জন্ম নিবন্ধন সনদ দিয়েছে। এগুলো নিয়ে তারা ভোটার হওয়ার জন্য ফরম পূরণ করেছে।

তথ্য সংগ্রহকারী মাষ্টার আব্দুল জব্বার বলেন, ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট ও জন্মনিবন্ধন সহ পরিপূর্ণ ডকুমেন্ট হাতে পাওয়ার পর ভোটার ফরম পূরণ করেছি। এতে কারও আপত্তি থাকলে আমি টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন অফিসার, ইউনিয়ন সুপারভাইজার, ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে পরামর্শ দিয়েছি।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, জনপ্রতিনিধিদের সহযোগীতা না থাকলে কোন রোহিঙ্গা নাগরিক এদেশে ভোটার তালিকাভুক্ত হওয়ার সুযোগ পান না।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় বেশ কিছু বাসিন্দা বলেন, বাহারছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মৌলভী আজিজ উদ্দিন তার ভোট ব্যাংক ভাড়ানোর জন্যে রোহিঙ্গা নাগরিকদের জাতীয় সনদ ও জন্মনিবন্ধন সনদ দেন। এই সনদগুলো নিয়েই অহরহ রোহিঙ্গা নাগরিক ভোটার তালিকাভুক্ত হয়ে এদেশীয় নাগরিক সেজে বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ড ঘটাচ্ছে। এছাড়াও এদেশী নাগরিক সেজে সৌদি আরব সহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে পাড়ি জমিয়ে সেখানে ঘটনাচ্ছে নানান অপরাধ। এতে করে চরমভাবে ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে এদেশীয় নাগরিকদের।

 

উত্তর দিন