• Monday, October 23, 2017
logo
add image
ভোগান্তি কমাতে খুলে দেয়া হলো আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার

ভোগান্তি কমাতে খুলে দেয়া হলো আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার

সিটিনিউজ ডেস্ক::গাড়ি চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হলো বহুল প্রতীক্ষিত আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার। শুক্রবার বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে নগরীর মুরাদপুর থেকে লালখানবাজার পর্যন্ত ৫ দশমিক ২ কিলোমিটার দীর্ঘ ও ৫৪ ফুট প্রস্থের ফ্লাইওভারটির একপাশ অর্থাৎ দুই লেন খুলে দেয়া হয়।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম।

মূলত যানজট কমাতেই নির্ধারিত সময়ের এক বছর আগেই খুলে দেয়া হলো এই ফ্লাইওভার। তবে এখন পুরোপুরিভাবে যান চলাচল সম্ভব না হলেও ঈদের পরেই পুরোপুরি উন্মুক্ত করা দেয়া হবে এই ফ্লাইওভার। এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সিডিএ সূত্রে জানা যায়, আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার প্রকল্পটি ২০১৩ সালের ১ অক্টোবর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) অনুমোদন দেয়। প্রকল্পের মেয়াদ ধরা হয় ২০১৮ সালের জুন মাস পর্যন্ত। ৫ দশমিক ২ কিলোমিটার দীর্ঘ ও ৫৪ ফুট প্রস্থের ফ্লাইওভারটির মোট নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ৬৯৬ কোটি টাকা। এর মধ্যে ফ্লাইওভারটির মূল অবকাঠামো তৈরিতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৫০ কোটি টাকা এবং র‌্যাম্প ও লুপ তৈরির কাজে ২৪৬ কোটি টাকা ।

সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম জানান, ঈদে যানজট কমাতে স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, ট্রাফিক বিভাগের অনুরোধে নির্ধারিত কাজের মেয়াদের আগেই ফ্লাইওভারটির একপাশ খুলে দেয়া হয়েছে। পরীক্ষামূলকভাবে যান চলাচলের জন্য মুরাদপুর থেকে লালখানবাজার আসার বামপাশের দুই লেন খুলে দেয়া হয়েছে। ঈদের পরে পুরোপুরি যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হবে।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স-রেনকেন (জেভি)'র মধ্যে ২০১৪ সালের ২৮ অক্টোবর এ বিষয়ে চুক্তি স্বাক্ষরের পর ২০১৫ সালের মার্চ মাসে ফ্লাইওভারটির নির্মাণকাজ শুরু হয়। ফ্লাইওভারটি মুরাদপুর এন মোহাম্মদ কনভেনশন সেন্টারের সামনে থেকে শুরু হয়ে জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের পশ্চিম গেটের সামনে হয়ে লালখানবাজারে এসে নেমেছে।

গাড়ির চলাচলের সুবিধার্থে ফ্লাইওভারে ৬টি র‌্যাম্প নির্মিত হচ্ছে। এরমধ্যে ফ্লাইওভারের জিইসি মোড়ে ৪টি র‌্যাম্প হবে। সেখানে ওয়াসা থেকে জিইসি মোড়ের দিকের গাড়িগুলো জিইসি কনভেনশনের সামনে এবং মুরাদপুরের দিকে যাওয়া গাড়িগুলো ইফকো কমপ্লেক্সের সামনে থেকে ফ্লাইওভারে উঠতে পারবে।

মুরাদপুর থেকে জিইসি মোড়ের দিকের গাড়িগুলো মেরিডিয়ানের সামনে নামতে পারবে এবং ওয়াসার দিকে যাওয়া গাড়িগুলো বস্নুজম গার্ডেনের সামনে থেকে উঠতে পারবে। ষোলশহর দুই নম্বর গেটে বায়েজিদ বোস্তামী রোডের দিকে দুটি লুপ থাকবে। একটি লুপ দিয়ে গাড়ি যেতে পারবে এবং অপরটি দিয়ে গাড়ি আসতে পারবে।

Leave a reply