• Saturday, October 21, 2017
logo
add image
শিক্ষার্থীদের লাইব্রেরিমুখী করতে ‘ডিজিটাল কনটেন্ট’ তৈরির বিকল্প নেই:চুয়েট ভিসি

শিক্ষার্থীদের লাইব্রেরিমুখী করতে ‘ডিজিটাল কনটেন্ট’ তৈরির বিকল্প নেই:চুয়েট ভিসি

নিজস্ব প্রতিবেদক::চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) -এর কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে আন্তর্জাতিক মানের ক্যাটালগিং সুবিধা সম্পন্ন ‘কোহা’ সফটওয়্যার চালু হয়েছে। এর মাধ্যমে চুয়েট কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী ‘ওপেন সোর্স ইন্টিগ্রেটেড লাইব্রেরী সিস্টেমের’ আওতায় আসলো।

রোববার (১৮ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী মিলনায়তনে (নতুন ভবন) অটোমেশন কার্যক্রম এবং দুইদিন ব্যাপী ’অনলাইন ক্যাটালগিং এন্ড এমএআরসি-২১’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন করেন চুয়েটের মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম।

এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চুয়েটের মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, বর্তমান প্রজন্ম কিছুটা লাইব্রেরী বিমুখ। তাঁরা অনেক বেশি ডিজিটাল কনটেন্টের প্রতি আগ্রহী। তাদের এই অনীহা দূর করতে লাইব্রেরীকে অটোমেশনের বিকল্প নেই। চুয়েট ভিসি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণকেন্দ্র হচ্ছে একটি মানসম্পন্ন লাইব্রেরী। একে শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের পদচারণায় সর্বদা প্রাণবন্ত রাখতে হবে। সে লক্ষ্যে চুয়েট কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীতে আন্তর্জাতিক মান সম্পন্ন ‘কোহা’ সফটওয়্যার চালু করা হয়েছে। এই পদ্ধতিতে লাখ লাখ বই অনলাইন সার্ভারে রাখা সম্ভব হবে। আমরা শীঘ্রই চুয়েট লাইব্রেরীকে পরিপূর্ণভাবে অটোমেশনের আওতায় আনার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

চুয়েট কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীর লাইব্রেরীয়ান জনাব মোঃ আবদুল খালেক সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়েটের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী ও ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি (আইআইসিটি) এর পরিচালক অধ্যাপক ড. আসাদুজ্জামান। অনুষ্ঠানে ‘কোহা’ সফটওয়্যারের মাধ্যমে লাইব্রেরী পরিচালনা বিষয়ে প্রেজেন্টশন উপস্থাপন করেন ডেপুটি লাইব্রেরীয়ান জনাব মোঃ নাছিরুজ্জামান।

Leave a reply