• Tuesday, June 26, 2018
logo
add image

উন্নয়নের সঠিক তথ্য জনগণ জানলে নৌকা ছাড়া অন্যরা ভোট পাবে না

উন্নয়নের সঠিক তথ্য জনগণ জানলে নৌকা ছাড়া অন্যরা ভোট পাবে না


নিজস্ব প্রতিবেদক,সিটিনিউজ :: ২৫নং রামপুর ওয়ার্ডে সরকারের প্রচারপত্র বিতরণকালে নেতৃবৃন্দ বলেন, বর্তমান সরকারের উন্নয়নের সঠিক তথ্য জনগণকে জানাতে পারলে নৌকা মার্কা ছাড়া অন্যরা ভোট পাবে না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশব্যাপী যে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড করছেন তা বাংলাদেশকে কয়েক দশক এগিয়ে দেবে।

৩১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে মুসলিম হল থেকে ডিসি হিল পর্যন্ত চট্টগ্রামে পূর্ণাঙ্গ সাংস্কৃতিক কমপ্লেক্স গড়ে ওঠবে। কর্ণফুলী ট্যানেল নির্মাণের ফলে কর্ণফুলীর দুপাড়ে ব্যাপাক সম্ভাবনার দ্বার খুলে যাবে। পানি নিষ্কাশন ও জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্পের মাধ্যমে চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা দূর হয়ে যাবে।

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের মাধ্যমে চট্টগ্রাম শহরে ট্রাফিক জ্যাম কমে যাবে, যাতায়ত ব্যবস্থা সহজ হয়ে যাবে। চট্টগ্রাম বন্দর ও বিমানবন্দর যাতায়ত, পণ্য পরিবহন সহজ হয়ে যাবে। বাকলিয়া এক্সপ্রেসওয়ের মাধ্যমে দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজতর হয়ে যাবে।

পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতের বিশাল অঞ্চল আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বদলে গিয়ে আন্তর্জাতিক পর্যটন কেন্দ্রে রূপ নেবে। দোহাজারি থেকে ধুমধুম পর্যন্ত রেল লাইন স্থাপনের ফলে রেল যোগাযোগ ও আন্তদেশীয় বাণিজ্যের এক বিশাল দুয়ার খুলে যাচ্ছে। চট্টগ্রাম বাইপাস সড়ক নির্মাণের ফলে উত্তর চট্টগ্রামের সাথে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংযুক্ত হয়ে যাচ্ছে।

২৫নং রামপুর ওয়ার্ডের মাদার্য্যাপাড়া জামে মসজিদে আজ শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) জুম্মার নামাজের পর সংক্ষিপ্ত গণজমায়েতে নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

বিশিষ্ট সমাজসেবক ফরিদ মাহমুদ এর উদ্যোগে চট্টগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা আলহাজ্ব এ.বি.এম. মহিউদ্দিন চৌধুরী’র রুহের মাগফেরাত কামনায় মিলাদ মাহফিল ও বিশেষ মুনাজাতের পর মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: মনজুরুল আলম দুলাল, মসজিদের ইমাম মাওলানা ছালেহ্ আহমেদ, মোয়াজ্জিন মাওলানা নাজিম উদ্দিনসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের হাতে উন্নয়নের দীপ্তশিখা, জননেত্রী শেখ হাসিনা শীর্ষক প্রচারপত্র তুলে দেন।

এসময় নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মসজিদ পরিচালনা কমিটির মোতোয়াল্লি হাজী আমির উল্লাহ, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা জহির উদ্দিন বাবর, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য আকরাম হোসেন সবুজ, সমাজসেবী হাজী মফিজুর রহমান, হাজী আবদুর রহিম ভূঁইয়া, মোহাম্মদ হোসেন মেম্বার, নাজির মিয়া, আবুল কালাম, মো: নাছির উদ্দিন, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের সদস্য এস.এম. সাঈদ সুমন, সাইফুর রহমান পলাশ, শেখ নাছির আহমেদ, দেলোয়ার হোসেন দেলু, মহানগর যুবলীগ নেতা আশরাফুল গণি।

আরো উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় নেতা সরওয়ার আলম মণি, যুবনেতা রাশেদ চৌধুরী, মনজুরুল আলম রিমু, আনিসুর রহমান মামুন, মো: শাহেদুল আলম, মো: বেলাল, মো: মোবারক, মো: মোশারফ হোসেন পুলক, জিয়াউদ্দিন রানা, মো: জাহেদ, মো: ওমর ফারুক, মো: নুর উদ্দিন, মো: জাবেদ, মো: সাইফুল, মো: শাহেদ, মো: সুমন, আশরাফুল আলম সিদ্দিকী, মোহিত উল্লাহ আরবি, জাবেদ হোসেন রাব্বি, হোয়াইট সুমন, মো: সরওয়ার, মো: সায়েম, মো: আরিফ উদ্দিন, মো: তুষার, মো: সাজিদ, মো: ফাহিম, মো: তানভীর, মো: রাশেদ, মো: টুটুল প্রমুখ।

এসময় নেতৃবৃন্দ বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা এদেশের উন্নয়নের জন্য জাতির জন্য এক আশির্বাদ স্বরূপ। তাঁর সরকার এদেশে প্রথম মেট্রোরেল চালু করবে, ট্যানেল করবে, পদ্মা সেতুও বাস্তবায়ন হচ্ছে।

রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র, রূপপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্র এদেশের বিদ্যুতে স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে ভূমিকা রাখবে। শিক্ষা, কৃষি ও শিল্প ক্ষেত্রে বিপ্লব সাধিত হবে। মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, বিধাব ভাতা, প্রতিবন্ধি ভাতা চালুর মাধ্যমে দেশে জনসাধারণের সচলতা বাড়বে।

তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়নের ফলে বাংলাদেশের তরুণ সমাজ আধুনিক, বিজ্ঞান ভিত্তিক, স্বনির্ভর দেশ গঠনে ভূমিকা রাখতে পারবে। শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার মোহরা পানি শোধনাগার প্রকল্প বাস্তবায়নে চট্টগ্রামবাসী পানির সমস্যাও লাঘব হয়ে যাবে।